echo '' ;

কিছু পশু ও জান্নাত

……….  Nilufa yasmin

স্তনবৃন্তের পানে যেরুপে বখে যাওয়া যুবক লোলুপ দৃষ্টি নিয়ে তাকায় তার স্বরুপ দেখতে পেলো জান্নাত ঠিক তার মস্তকের থেকে দুহাত দূরে।চোখগুলো ক্রমাগত ওর দিকে এমনভাবে দৃষ্টি নিক্ষেপ করছে যেন পৃথিবীর অষ্টম আর্চয তাদের চোখের সামনে। কিছুতেই একটা মেয়ের এটা ভালো লাগার কথা নয়।রাস্তায় সামান্য একটা ছেলে তাকালেই ভদ্র মেয়েগুলো নিজের বুকের উড়নাটা কয়েকবার টেনে ঠিক করে নেয় আর এখানে তো হাফেজী একটা মেয়ের দিকে শতচক্ষু।জান্নাত বুঝতে পারছেনা এমনটা কেন!!!লোকগুলো তাকিয়ে আছে কেন??

জান্নাত এই দৃষ্টির প্রতি প্রতিবাদী কন্ঠে বলল,  আপনারা আমার দিকে তাকিয়ে আছেন কেন??চোখ সরান আমার উপর থেকে।

কিন্তু কারো কানে সেটা গেলোনা।বরং কিছু কিছু মানুষ ওর দিকে তাকিয়ে চোখ বুজে চলে যাচ্ছে।একটা বৃদ্ধ এসে দাড়ালো সেখানে।সাদা ধবধবে চাদর পরিহিত সৌম্য চেহারা।জান্নাত ভাবলো তাকেই নাহয় বলা যায় ওর অসুবিধার কথা।কিন্তু বৃদ্ধ লোকটিও ওকে হতাশ করে দিলো। তিনি চোখ বুজে উপরে তাকিয়ে জোরে আওড়ে আওড়ে বললেন, হে আল্লাহ!! এও নিজের চোখে দেখার ছিল।ওনার চোখে জল চিকচিক করছে রোদের আলোয়।

বৃদ্ধটি এবার অপেক্ষাকৃত কমবয়সী ছেলেটির হাতে চাদরটি দিয়ে বলল, গতরটা ঢেকে দেও।

 

ছেলেটির চোখেও অশ্রু।ছেলেটিকে চিনে জান্নাত। খুব ভালভাবে না চিনলেও মোটামুটি প্রায় প্রতিদিন ছেলেটিকে ওর মাদ্রাসার সামনে কিছু একটার অপেক্ষায় দাঁড়িয়ে থাকতে দেখেছে সবাই।রাস্তার ওপাশের একটা ডাব গাছের সংগে হেলান দিয়ে দাঁড়িয়ে থাকতো ছেলেটি।সবাই বলতো, জান্নাত সে শুধু তোকে দেখার জন্যই আসে।

জান্নাত কথাটা শুনে অবাক হতো।ওকে দেখার মত কিছুই তো নেই।চোখমুখ হাত পা সবকিছু কালো পর্দার নিচে লুকায়িত। তবে কেন অযথা ওকে দেখতে আসবে।আচ্ছা আজ ছেলেটি এখানে কোথা থেকে এলো!!!এখানেই বা কি করছে।

ওর দিকে সবাই তাকিয়েই বা আছে কেন!!!জান্নাত উঠার চেষ্টা করে কারন ছেলেটা ওর গায়ে চাদরটা দিতে আসছে।না জীবন থাকতে জান্নাত ওর গা কাউকে ছুতে দেবেনা…….

জীবন!!! জীবনের কথায় মনে এলো জান্নাতের সত্যিই তো জীবন তো এমন নয় ওর। আজকে তবে কি হচ্ছে ওর সাথে।জান্নাত উঠার চেষ্টা করে।সমস্ত শক্তি দিয়ে টেনে হিচড়ে

সে নিজেকে নিয়ে উঠতে চাইছে।কিন্তু শরীরটা কোনোমতেই যেন একচুলও সরে আসতে চাইছেনা।নিথর হয়ে গেছে যেন!!!

দেহের সমস্ত শক্তি দিয়ে একসময় উঠে দাড়ালো জান্নাত।বাহিরে  লোলুপ দৃষ্টির মানুষগুলো বল প্রয়োগের সুত্রস্বরুপ দেখতে পেলো জান্নাতকে কয়েকবার কেপে উঠতে।

বৃদ্ধ লোকটি তাড়াহুড়ো করে বসে জান্নাতের নাড়ির স্পনদন দেখলো।

নাহ!!!!আর বেচে নেই।

ছেলেটি কাদছে। অঝোরে চোখের জল গাল বেয়ে গড়িয়ে পড়ছে।

হ্যা,আপনারা একটা মেয়েকে রাস্তায় পড়ে থাকতেই দেখুন। কেউ বাচানোর চেষ্টা কইরেন না!!!

জান্নাত কাছে দাড়িয়েই হাসছে।কারন জীবন থাকতে সে নিজেকে নোংরা শেয়ালগুলোর খামচির আঘাত নিতে দেয়নি।কিন্তু কতটা হিংস্র হলে একটি ধার্মিক পর্দাশীল হাফেজী মেয়ের আত্নহত্যার পরেও মেয়েটিকে খুবলে ছিড়ে নিতে পারে তাই ভেবে হাসছে জান্নাত।আত্নাটা অই দেহ থেকে বেরিয়ে আসার পর সব মনে পড়ে গেছে জান্নাতের। তবুও জান্নাত হাসতে হাসতে চলে গেলো উপরওয়ালার কাছে কারন ওর জানা আছে মানুষগুলো কোনোদিনই সেই হিংস্র পশুগূলোর দাত ভাংতে পারবেনা কেবল চোখে ধরতে শিখেছে তারা।

কবিত্বের স্বার্থকতা

কবিতা
Read More
কবিত্বের স্বার্থকতা

কৃষ্ণকলি

সাদ্দাম চিৎকার করে কেঁদে উঠে সব মানুষের সামনে।লোকজন তাকায়। তারপর ওর ময়লা বেশভূষা বিবেচনা করে তাচ্ছিল্য করে বলে উঠে, পাগল বেটা। থেকে থেকে কেঁদে উঠে আর কি!
Read More

রায়ানা

সামাদ পকেট থেকে একটা ক্রেডিট কার্ড বের করে রায়ানার হাতে দেয়। ওর কপালে একটা চুমু খায় তারপর পেটে হাত বোলায়। “ পালিয়ে যাও “

“মানে”

“ আমাকে যদি ভালোবেসে থাকো তবে তুমি আজ রাতেই অন্য কোথাও পালিয়ে যাও। এ দেশে থেকোনা। আমাদের সন্তানকে বাচাও রায়ানা।“

Read More

পরজন্ম

“ছেলেদের এভাবে চোখে জল আসবে কেন! ছেলেদের কাঁদতে নেই। “- নিজেকে বোঝায় সাদ।
Read More

ইচ্ছে

আমার বড় ইচ্ছে ছিল প্রেমিকা হবার,চোখে খুব গাঢ় কাজল পরে;নেত্রজোড়া ভূপৃষ্ঠে নামিয়ে,মুখখানি হাতে ঢেকে ইচ্ছে ছিল লজ্জা পাবার। আমার বড়...
Read More
ইচ্ছে

নীল কোর্ট

রুদ্র খুব সাধারণ একটি ছেলে। সামান্য কেরানী পদের একটা চাকরী করে একটা সরকারী প্রতিষ্ঠানে। মাসে যা পায় তাতে খুব ভালো...
Read More

থাক অশ্রুত

তোমার-আমার সম্পর্কটা হোক এমন, -কেমন আছো! -ভালো আছি ,আপনি ভালো আছেন? -হ্যা ভালো আছি... এরচে বেশি চেয়ে নিলে পরে ইতি...
Read More

গরমে ত্বকের যত্ন নেবার ঘরোয়া কিছু পদ্ধতি

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({}); বছর ঘুরে আবার চলে এসেছে গ্রীষ্মকাল। বাংলাদেশে এ সময়ই সূর্যের প্রখরতা থাকে সবচেয়ে বেশি। এদিকে...
Read More
গরমে ত্বকের যত্ন নেবার ঘরোয়া কিছু পদ্ধতি

হ্যাকিং আর আমাদের ভবিষ্যৎ

হ্যাকার হচ্ছেন সেই ব্যক্তি যিনি নিরাপত্তা/অনিরাপত্তার সাথে জড়িত এবং নিরাপত্তা ব্যবস্থার দুর্বল দিক খুঁজে বের করায় বিশেষভাবে দক্ষ অথবা অন্য কম্পিউটার ব্যবস্থায় অবৈধ অনুপ্রবেশ করতে সক্ষম বা এর সম্পর্কে গভীর জ্ঞানের অধিকারী
Read More
হ্যাকিং আর আমাদের ভবিষ্যৎ

কবিতার নাম ভালবাসা

চোখ নামিয়ে কবিতা পড়তে পড়তে আবার শিউরে উঠে বলবি, এত ভালবাসিসনে আমায়।
Read More
কবিতার নাম ভালবাসা

You may also like...